মন্ত্রিসভায় সম্প্রচার আইনের খসড়া নীতিগত অনুমোদন

0 8

গণমাধ্যম সম্পর্কে দুটি আইনের খসড়া নীতিগত অনুমোদন দিয়েছে মন্ত্রিসভা। রেডিও টেলিভিশন ও অনলাইন মাধ্যম পরিচালনায় একটি কমিশন গঠনের বিধান রেখে সম্প্রচার আইন এবং সাংবাদিকদের গণমাধ্যমকর্মী হিসেবে উল্লেখ করে তাদের সুযোগ সুবিধা নিশ্চিত করতে গণমাধ্যম কর্মী-চাকরির শর্তাবলী আইন নামে আরেকটি আইনও অনুমোদন করেছে মন্ত্রিসভা। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে আজ মন্ত্রিসভার বৈঠকে এ অনুমোদন দেয়া হয়।

বেসরকারি টেলিভিশন, বেতার ও অনলাইন সংবাদ মাধ্যম পরিচালনা ও নিয়মের মধ্যে রাখতে সম্প্রচার আইন করছে সরকার। সচিবালয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে মন্ত্রিসভার নিয়মিত বৈঠকে এই আইনের খসড়ার নীতিগত অনুমোদন দেয়া হয়। সম্প্রচার আইনে সাত সদস্যের একটি সম্প্রচার কমিশন গঠনের কথা বলা হয়েছে। কমিশন লাইসেন্স দেয়ার ক্ষেত্রে সুপারিশ করাসহ সম্প্রচার ব্যবস্থাকে শক্তিশালী ও গতিশীল করবে। বৈঠক শেষে মন্ত্রিপরিষদ সচিব, জানান, সম্প্রচার মাধ্যমে অসত্য ও বিভ্রান্তিকর তথ্য প্রচার, মুক্তিযুদ্ধের তথ্য বিকৃতি বা ভুল তথ্য প্রচারের মত অপরাধের জন্য জেল জরিমানার বিধান রয়েছে।

এই আইন পাস হলে সম্প্রচার কমিশন বেসরকারি টেলিভিশন, বেতার ও অনলাইনের অনুমোদন দেবে। তবে চাল সম্প্রচার মাধ্যম সম্পর্কে এই আইনে কিছু বলা নেই বলে জানান মন্ত্রিপরিষদ সচিব।

মন্ত্রিসভা বৈঠকে এছাড়াও গণমাধ্যম কর্মী-চাকরির শর্তাবলী আইন নামে সাংবাদিকদের জন্য নতুন চাকরি আইনের খসড়ার নীতিগত অনুমোদন দেয়া হয়েছে। পাঁচ বছর পর পর এই আইনের অধীনে গণমাধ্যমকর্মীদের বেতন-ভাতা ঠিক করতে ওয়েজবোর্ড গঠন করবে সরকার। প্রস্তাবিত আইনে কোনো গনমাধ্যমকর্মীকে সপ্তাহে ৩৬ ঘন্টা কাজের সময় বেধে দেয়া হয়েছে। এর বেশী কাজ করলে আর্থিক সুবিধা দিতে হবে।